More

কিভাবে সিমেন্ট আর তুয়ালো দিয়ে ফুলের টপ বানাতে হয়

কিভাবে Cement আর তুয়ালো দিয়ে ফুলের টপ বানাতে হয়?

হাই বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন আজকে আমি আপনাদেরকে বানানো শিখব কিভাবে একটি তোয়ালে এমনকি সাথে সিমেন্ট গুলি কিভাবে সুন্দর একটি ফুলের টপ বানানো যায় ফুলের ফুলের টব যে যাই বলুন না কেন এটা খুবই যে আপনি যদি বানাতে চান তাহলে আজকের আর্টিকেল সম্পন্ন করতে থাকুন আজকে আমি আপনাদেরকে এটা বানানো দেখাবো প্রথমে আপনাকে ছোট একটা টুকরা নিতে হবে সেটাকে অবশেষে করে কাটতে হবে এরপর 4:30 বাস করবেন করার পর আপনি এক সাইট থেকে আরেক সাইট পর্যন্ত অ্যাঙ্গেলে গোল করে কাটবে এরপর যখন খুলবে তখন দেখবেন তো অনেক বড় হবে সেটার মাঝখানে আপনি কি করবেন একটি ছিদ্র করা হয়ে গেলে আপনাকে পরে চলে যেতে হবে আপনাকে একটা গামলায় মোটামুটি ভালো একটা গামলায় কিছু বালুমাটি নিতে হবে যে মাটি আপনাকে গামলাটা ভরতে হবে এরপর আপনি কি করবেন।

     আরো পড়ুন…

প্রথমেই তোয়ালো Size করে কেটে নিনঃ

আপনাকে অবশ্যই একবার হাত হতে হবে তবে যেন মোটা মোটা হয় এরপর আপনি কি করবেন গামলা ভর্তি বালি মাটির উপরে বসাবেন অবশ্যই এতে আপনি আর কিছু ব্যবহার করবে না শুধু বালের মধ্যে একটা দিলেই হবে এরপর একটু জল এনে টাইট করার জন্য উপর দিয়ে দিয়ে দিবেন বালির ওপর দিয়ে তখন তার টাইট হবে তখন পায় কিন্তু দাঁড়িয়ে থাকবে যখন পাইপের উপরে আপনাকে একটি বন্ধ করে একটি বাটি অথবা একটি ছুরি বসিয়ে দিতে হবে এরপর কেটেছে সেটা আপনাকে সেখানে সমানভাবে মাঝখানে রেখে সেটা বসিয়ে দিবেন এরপর কি করবেন কেটে নিবেন আর একটি গামলায় কিছু নিয়ে সেটা দিয়ে সিমেন্ট পানির মাধ্যমে নিবেন তখন সেটা যেন পাতলা পাতলা থাকে একেবারে একেবারে মোটা এখন কোন কিছু না একটু বেশি করে পানি দিলে সেটা গ্রামের মতো হয়ে যাবে তখন সেটা নিজের মতো করে বানিয়ে নেবেন।

এরপর কি করবেন আপনার তো আলাদা জল নিয়ে সেই জলে ভেজানো শেষ হয়ে যাবে তখন সেটাকে ভালো করে জানে জলটা ঝরে পড়ে যায় দেন আপনি কি করবেন সেটা আপনার সিমেন্ট গুলানো বলে বিয়ে দিবেন তখন আপনার কোনি আরেকটা হাত দিয়ে সেটাকে ভালো করে ভেজে নিতে হবে যাতে করে আপনার মত মাঝখানে কোন শুকনা থাকে সম্পূর্ণ সিমেন্ট এর মাধ্যমে ভরে যায় সেটা যেন পরবর্তীতে শক্ত হয় প্রথমে আপনি ভালো করে ওটাকে গুলি খুব সুন্দর করে নেড়ে চেড়ে সেবাটির উপরে বাপের উপরে বসে দিমেনশন লাগে তবে সেখানে থাকে এমন করে আপনি কি করবেন থেকে আপনাকে নকশা করে দিতে হবে যেমনটা বাড়ির অন্য কেউ যখন কাপড় পড়ে তখন সেটা পড়ে রয়েছে সেটা তো অবশ্যই করতে হবে আপনি সুন্দর করে করে দিতে হবে অবশ্যই এক সাইটে আপনি একটু বাড়তি রাখবেন আরেকটু বড় রাখবেন।

 

 Cement গুলানো ও ভিজানোঃ

এর পর সেটাকে আপনি আবার কিছু সিমেন্ট মোটা করে গুলিয়ে আপনাকে একটি রঙের বলে দিতে হবে যেন এটা পরবর্তীতে নরম না হয়ে ভেঙ্গে না যায় অবশেষে তাকে অবশ্যই শক্ত করতে হবে এবার আপনি আপনাদেরকে বলবো এটা কি সুন্দর করে আপনি শক্ত পোক্ত করার জন্য ভালো করে দেন এটা অবশ্যই আপনি যদি রাখার চেষ্টা করবেন তাহলে আপনার দ্রুত শুকিয়ে যাবে তো তারপর কি করবেন অবশ্যই আপনি ব্রাশ দিয়ে ঘষে দিবেন বেশি করে তখন কি হবে জিনিসটা আস্তে আস্তে শক্ত হতে থাকবে আর আপনার ঘড়িতে চলিবে না কেন সেটা যদি একটু ডিজাইন বাপের মত হয় তাহলে জিনিসটা দেখতে আরও বেশি আকর্ষণীয় লাগবে আর অবশ্যই বলবেন তখন অবশ্য একটু ঘন করে নিলে আপনার দেন এ কাজটা হয়ে গেলে আপনাকে যা যা করতে হবে আমি আপনাদেরকে বলে দিয়েছি সকল স্টেপগুলা আপনি অবশ্যই পূরণ করার চেষ্টা করবেন এরপর আপনি আলাদা আরো একটি বাটিতে কিছু সিমেন্ট মেয়ে মোটা করে গলাবেন ভিজাবেন।

 

সেটাকে একটু কাঁদা কাঁদা করে আটা মাটির মতো করে নেবেন এরপর সেটা হাত দিয়ে আপনি ফুলের টবের গোড়ায় বসে দিতে হবে তবে সেটা যেন অবশ্যই গুড়ার ওখানে ভুল করে একটি গোলাকৃতি তৈরি হয় তবে সেটা শুধুমাত্র আপনার টপে সৌন্দর্য প্লাস আপনারা কিসের উপরে থাকবে সেটা নির্ভর করে তবে সেটা অবশ্য আপনাকে সম্পন্ন হবে আপনার হাতেই করতে হবে কারণ এটা অন্য কিছুদে করাটা একটু খারাপ হয়ে যাবে তাই এটা হাত দিয়ে কোন সমস্যা নাই কারন এই জিনিসটা নিচে থাকবে এটা অতটা সৌন্দর্য তা দেখা যাবে না তবে সবসময় চেষ্টা করবেন এটাকে স্মুথলি করার হাত দিয়ে তাইলে আপনি এখানে কোনটি ব্যবহার করতে পারেন এবার আপনি আরেকটা কাজ করবেন যে আপনি যখন কাপড় টা নিবেন তখন অবশ্যই আপনাকে এমন একটা কাপড় নিতে হবে যেটা যেন শক্ত থাকে তারপর এটাকে রোদে শুকিয়ে তারপরের দিন উঠাবেন উঠে বসাবেন দেখবেন এটা এত সুন্দর দেখতে লাগবে আমাকে আকর্ষণীয় সুন্দর করে বসেও যাবে।

 

টপ টিকে আস্তর করুনঃ

তবে আপনার গলাটা যদি আপনি একদম সমানভাবে করে নেন তাহলে একটা সুন্দর করে বসতে অসুবিধা হবে না আর ভিতরে যে বাটিটা দিবেন না দিবেন সেটা একটু টান দিলে উঠে যাবে তবে বিশেষ করে আমি যেটা বলবো যদি আপনি একটু বলেন তাহলে আপনার ঝুড়িটি খুব দ্রুত উঠে যাবে কারণ এটার মাধ্যমে সেটা আপনাদের লেগে থাকবে না এরপর আপনি কি করবেন বলে পানিতে দিয়ে আপনার থেকে সুন্দর করে ভিজাবেন পরে সেটা কি জানো একটু মজবুত হয় এমনকি পরবর্তীতে আপনাকে রংয়ের জন্য প্রস্তুত করতে হবে তবে ভালো করে দিবেন যতোটুকু আছে সম্পূর্ণভাবে উপর নিচ করে দেবেন এরপর চাইলে আপনি আবার জ্ঞান দিতে পারেন পাতলা করে সেটা ভুলিয়ে দিতে পারেন এজন্য অবশ্যই আপনাকে একটু বেশি সময় লাগবে এটা দেয়ার পরও আপনাকে আবার কিছু সময় নিয়ে রোদে শুকাতে হবে।

যেন এটা শুকিয়ে যায় তবে আমরা খুব দ্রুত রংয়ের জন্য প্রস্তুত করছি যে এটা কি রংয়ের হবে কেমন দেখাবে কত সুন্দর দেখাবে সেই বিষয় নিয়ে এখন কি করবো এটা যখন শুকিয়ে যাবে তখন আপনাকে আপনি চাইলে আপনার পছন্দের রংটি দিতে পারেন তবে তার আগে বলেছি আপনি অবশ্যই খেয়াল করবেন আপনি এটাকে সাদা রং করলে সবচেয়ে বেশি সুন্দর লাগে তবু যুদ্ধ করতে চান সাধারণ করে নিবেন কারণ সাধারণের মধ্যে অবশ্যই চেষ্টা করবেন না তাহলে ভালো হবে আর যদি আপনি চান তাহলে কিন্তু অতটা ফুটবে না তবে আপনি আপনার ভিতরের জিনিসটা এরপর আপনি আপনার ফুলের টপ এর মধ্যে একটু লক্ষ করুন যে জিনিসটা কত সুন্দর লাগছে আর সময় অবশ্যই সব জায়গায় দেয়ার চেষ্টা করবেন।

 

Color and Design – Red/White/Blue/Yellow Etc.

কারণ এখানে এমন কোন জায়গায় রাখবেন না যেন সেটা দেখা যায় ভালো করতে হবে আপনি সেটাকে অন্য রং এর মাধ্যমে লাল নীল হলুদ সবুজ ডিজাইন করতে পারেন ডিজাইন করা কিছু প্রশ্ন আপনি করতে পারবেন আবার অনেক সময় ত পেরফর্ম করতে পারেন আপনি চাইলে নিচের ঘোড়াটাকে নীল কালার সবুজ কালার লাল কালার বা অন্য কালার দিয়ে সুন্দর করে আকর্ষণীয় ডিজাইন করতে পারেন যখন আপনার সম্পূর্ণভাবে রং করা শেষ হয়ে যাবে তখন আপনার জন্য প্রস্তুত থাকবেন এর জন্য অবশ্যই আপনাকে কিছু জৈব সার মাটি নিতে হবে তবে সবচেয়ে বেশি হওয়ার জন্য গ্যারান্টি সুন্দর সুন্দর দেখাবে গাছের পাতা সুখ হবে না এজন্য অবশ্যই আপনাকে ভালো কিছু জৈব সার মাটি নিতে হবে এরমধ্যে ভরাট করতে হবে তবে সব মনে করবেন না যেন অসন্তোষ দেখা দেয় সিম্পল কিছু মাটি নিয়ে সেখানে ভরাট করে সুন্দর একটি গাছ বলে দিতে পারেন।

গাছটা যখন পড়বেন তখন গাছটা কিন্তু দেখতে অনেক আকর্ষণ লাগবে সবুজ গাছ সাদা টপ এছাড়া অন্যান্য ডিজাইনের জেঠু বানান না কেন তো দেখতে কিন্তু অনেকটা আকর্ষণীয় এভাবে আপনি খুব সহজেই সুন্দর সুন্দর প্রবাদ নিতে পারবেন এমনকি সকলের চোখের তাক লাগিয়ে দিতে পারবেন এত সুন্দর কিছু টপ এর মাধ্যমে তো বন্ধুরা আশাকরি পোস্ট টি ভাল লাগলে আমাদের সাথেই থাকুন পাশে থাকা বেল আইকনটি বাজিয়ে দিতে ভুলবেন না কারণ পরবর্তী কোন পোস্টে আপনাকে জানিয়ে দিবে ধন্যবাদ 

2 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button