Tech

কিভাবে Images Optimization করলে, ওয়েবসাইট সার্চ র‍্যাংকে আসবে

Images Optimization Trick 2021- আপনি হয়তো বা জেনে অবাক হবেন। গুগলে ভিজিটর’রা আর্টকেল এর থেকে বেশির ভাগ ইমেইজ সার্চ করে থাকেন। প্রতিনিয়ত কোনো না কোনো বিষয় সার্চ করার মাঝে ইমেইজ টা অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি পয়েন্ট। তার মানে বুঝতেই পারছেন। আপনি যদি ভালো মানের একটি ইমেইজ আপনার পোস্টের থাম্বনেইল বা আর্টিকেল এর ফাকে ফাকে ব্যবহার করেন। এতে করে আপনার সাইটে বেশি বেশি ভিজিটর পেতে হেল্প করবে।

আর যদি সেই ইমেইজ টা একবার ভালো মানের SEO পারেন। তাহলে মামা আর কি লাগে। খেলা এখানেই জমে খির হবে। কারন এমনিতেই ভিজিটির রা ইমেইজ খুজতেছে। আর সেই টা যদি একবার আপনার সাইটে থাকে। তাহলে সেই ভিজিটর আপনার সাইটে আসতে বাধ্য হবে। কেনোনা তার সেই ইমেইজ টা দরকার।

 

 

Images Optimization কেনো করবেন?

আর সেই মুহুর্তে আপনার ভিজিটর বৃদ্ধি পাবে। গুগল আপনাকে র‍্যাংকিং এ নিয়ে আসবে দ্রুত। কারন গুগলের অর্গানিক ভিজিটর আপনাকেই খুজতেছে বলে ধারনা করবে। আর এভাবেই আপনার সাইটের উন্নতি হবে। এর পরেও কি আপনি ইমেইজ অপটিমাইজেশন নিয়ে ভাবিবেন? যে করবেন কি না। আমার মন বলছে আপনি এখুনি প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছেন। আজ থেকে প্রতিদিন আপনার প্রত্যেকটা পোস্টের ইমেজ গুলো খুব ভালো ভাবে অপটিমাইজেশন করবেন। এখন আসি কিভাবে এই Image গুলো Optimized করতে হয়৷

মনে রাখবে ইমেইন অপটিমাইজড এক প্রকার দারুন SEO এর কাজ করে। গুগল সার্চ রেজাল্ট এ আনতে সাহায্য করে। তবে সেটা কীভাবে অলটিমাইজ করতে সার্চ ইঞ্জিন ফ্রেন্ডলি হবে। এটা জানাও খুব ইম্পর্টেন্ট। আর আপনি যদি আমার এই কয়েক টা টিপস ভালো করে পড়েন। আশা করি সব কিছু জলের মতো বুঝতে পারবেন। যারা এসইও সমন্ধে বুঝে না। তাদের জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর যারা বুঝেন। তাহলে এটি আপনাকে অনেক সহায়তা করবেন। তবে ইমেইজ SEO এর সাথে অনেক কিছু বিষয় জড়িত থাকে। এদের মধ্যে বেছে বেছে আমি মজাদার হেল্পফুল কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো।

Images Optimization Bangla

Images Optimization
ইমেজ এর আকার বা সাইজ ছোট করুন – Images Optimization

প্রথমোতো আপনাকে মনে রাখতে হবে। আপনি যে কন্টেন্ট নিয়ে লেখালেখি করবেন। সেই কন্টেন্ট রিলেটেড ইমেইজ হতে হবে। তা না হলে কিছু এটা অকার্যকর হয়ে যাবে। এটা এসইও ফ্রেন্ডি নাও হতে পারে। এতে করে ২ টা ২ রকম দেখাবে। এই রকম ভুল কাজ যেনো কখনো না হয়।

ধরুন আপনি একটি আর্টিকেল লিখেছেন। সেটা টেক রিলেটেড। তবে সেটা একটি স্মার্ট ওয়াচ সম্পর্কিত কথা বলেছেন। এতে করে আপনি সেই আর্টিকেলর থাম্বনেইল বা মাঝখানে মোবাইল এর ছবি বা ইমেইজ ব্যাবহার করতে পারেন না। যেটা দেখতে একদমি খারাপ দেখাবে। এছাড়াও গুগল এটিকে পছন্দ করেন না। অবশ্যই আপনি সেই আর্টিকেল এ লেখার স্মার্ট ওয়াচ এর ছবি দিন। এতে করে ভিজিটর রা খুশি হবেন। তাদের বুঝতে সুবিধা হবে।

 

 

SEO Friendly Images Optimization

তবে আরো ভালো করতে চাইলে। যে মডেল এর স্মার্ট ওয়াচ সমন্ধে বলবেন। সেই মডেলের ইমেজ ব্যবহার করুন। এতে করে আরো SEO Friendly হবে। যা দেখে গুগল ও ভিজিটর অত্যন্ত খুশি হবে। আপনার পোস্ট গুলো সবার কাছে জনপ্রিয়তা পাবে। আর মনে রাখবেন একটা ভিজিটর যদি আপনার কাছে থেকে যায়। তবে সে লাইফ টাইম এর জন্য আপনার সাইট ফলো করবে। এভাবে বাড়তে বাড়তে একদিন আপনি পৌছে যাবেন স্বপ্নের কোঠায়।

আরেকটা বিষয় হলো ইমেইজ স্কেল। এটা বলতে আমরা যা বুঝি, ইমেইজ কত টুকু লম্বা মানে হাইট বা পাশের ওয়াইড। আপনারা হয়তো অনেকে জানেন একটি ওয়েবসাইট এর অনেক গুলা সাইড বার থাকে। সেটা হতে পারে রাইট সাইড বার, লেফট সাইড বার, আবার বিভিন্ন রকম ডিজাইনের সাইটে বিভিন্ন সাইট এর বার থাকে।

 

 

ইমেজ এর আকার বা সাইজ

এই বারে সাথে আপনার ইমেইজ গুলার আকার ছোট বড় হলে আপনি দেখিতে পারবেন। যে আপনার সাইটের ডিজাইন যতই সুন্দর হওক না কেনো। সাইট টা দেখতে বিশ্রি লাগছে। শুধুমাত্র ইমেইজ সাইজের জন্য। তাই যথাসম্ভব ইমেইজ টা ওয়েবসাইট এর সাইট করবেন। চাইলে গুগলে সার্চ করে একটি ওয়েবসাইট এর আর্টিকেল সাইট জেনে নিবেন। আর সেই সাইজের ইমেজ এডিটিং করবেন। আবার কন্টেন্ট এড়িয়া টুকু দেখে নিবেন। তার পরে অই মাপের ইমেইজ তৈরি করবেন। যাতেকরে সবাই ইমেজ গুলো স্পষ্ট দেখতে পারে। আমি আপনাদে কে ( 1280*720 ) এই সাইজের ইমেইজ ব্যবহার করতে বলবো। কেনোনা এটা সব যায়গায় প্রায় সাপোর্ট খায়।

এবার আসি মূল বিষয়ে। আপনার সব কিছুই তো ঠিক আছে। কিন্তু সাইটে যখন ভিজিটর প্রবেশ করবেন। তখন যদি ইমেইজ গুলো সো করতে কয়েক মিনিট লেগে যায়। এতে করে কি মনে হয় তারা আর আমাদের বাড়িতে থেকে যাবে। মানে একটা ভিজিটর তখনি আপনার সাইটে বেশি সময় ধরে থাকবে। যখন আপনার সাইট এর ইমেইন গুলো সুপার ফাস্ট লোড হবে বা সো করবেন।

ওর জন্য একটা কাজ করতে পারেন। সেটি হলো ইমেইজ এর সাইজ কোয়ালিটি রেজুলেশন ঠিক রেখে MB/ps কে KB/ps এ পরিনত করা। কারন আপনার সাইটের লোডিং স্পিড আগের তুলনায় ১০ গুণ বাড়িয়ে তুলবে।

 

 

ইমেজ কোয়ালিটি ঠিক রেখে এমবি সাইজ কমানোর  উপায়

এর জন্য আপনাকে সরাসরি চলে যেতে হবে গুগলে। সেখানে এসে সার্চ করুন TinyPNG লিখে। যে সাইটে নিয়ে আসবে। সেখানে একটা পানডার ছবি দেখিতে পারবেন। এবার Drop your png or jpg files এ ক্লিক করে আপনার সেই কাঙ্ক্ষিত ইমেইজ টি আপলোড দিন। যেটার এমবি সাইজ কমাতে চাইছেন। এরপরে দেখবেন অটোমেটিক লোড নিয়ে সেটাকে সেইভ করতে বলবে। সেটা কোনো এক ফাইলে নিয়ে আসবেন এবং চেক দিবেন দেখতে পাবেন। যে আপনার ইমেইজ টি এত টাই হালকা লাগবে। আপনি অবাক হতে বাধ্য হবেন। কারন ইমেইজ টা প্রায় ৭০-৮০% কোয়ালিটি ঠিক রেখে এমবি সাইট কমিয়ে দিবে।

এতে করে এই ইমেইজ টা অপটিমাইজেশন করে আপনি যদি আপনার সাইটে আপলোড দেন। তাহলে আর জীবনেও ইমেইজ লোড নেওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না।

আজকের বিষয় টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। তাই আমাকে জানান যে পোস্টে টি কেমন লেগেছে। ভালো লাগলে অবশ্যই কমেন্ট করতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ!

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button